ঢাকা , বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে, আমি রায় মেনে নিয়েছি: আজমত উল্লাহ

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে পরাজিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এডভোকেট আজমত উল্লাহ খান বলেছেন, পরাজয় মেনে নিয়েছি। কেউ সহযোগিতা চাইলে বিবেচনা করা হবে। শুক্রবার (২৬ মে) নিজ বাসায় সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। আমি রায় মেনে নিয়েছি। তবে অন্য কেউ পরাজিত হলে রায় কি মেনে নিতো কি না-সেই প্রশ্নও রেখেছেন তিনি। রায় মেনে নিয়ে অভিযোগ করে তিনি বলেন, কিছু ত্রুটি ছিল ইভিএমে। অনেকে ভোট দিতে পারে নাই।

পরাজয়ের কারণ পর্যালোচনা করা হবে। পরাজয়ের জন্য কি কি কারণ ছিলো তা জানানো হবে। বিজয়ী মেয়র জায়েদা খাতুন আপনার সহযোগিতা চাইবেন বলে জানিয়েছেন এমন প্রশ্নের জবাবে আজমত উল্লাহ বলেন, কেউ যদি সহযোগিতা চায় তা অবশ্যই বিবেচনা করা হবে। গতকাল (২৫) মে গাজীপুর সিটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

উল্লেখ্য, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী (টেবিল ঘড়ি) প্রতীকে ২ লাখ ৩৮ হাজার ৯৩৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন সাবেক মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলমের মা জায়েদা খাতুন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের আজমত উল্লা খান নৌকা প্র্রতীকে ২ লাখ ২২ হাজার ৭৩৭ ভোট পেয়েছেন। ১৬ হাজার ১৯৭ ভোটের ব্যবধানে জায়েদা খাতুন জয় লাভ করেন। জয় লাভের পর জায়েদা খাতুন পদ পরিচালনা করার ক্ষেত্রে আজমত উল্লাহ খানের সহযোহিতা
চাইতে পারেন বলে প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় ঘোষণা করেন।

Tag :
আপলোডকারীর তথ্য

Bangal Kantha

নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে, আমি রায় মেনে নিয়েছি: আজমত উল্লাহ

আপডেট টাইম : ০৭:৩১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ মে ২০২৩

গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে পরাজিত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এডভোকেট আজমত উল্লাহ খান বলেছেন, পরাজয় মেনে নিয়েছি। কেউ সহযোগিতা চাইলে বিবেচনা করা হবে। শুক্রবার (২৬ মে) নিজ বাসায় সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে। আমি রায় মেনে নিয়েছি। তবে অন্য কেউ পরাজিত হলে রায় কি মেনে নিতো কি না-সেই প্রশ্নও রেখেছেন তিনি। রায় মেনে নিয়ে অভিযোগ করে তিনি বলেন, কিছু ত্রুটি ছিল ইভিএমে। অনেকে ভোট দিতে পারে নাই।

পরাজয়ের কারণ পর্যালোচনা করা হবে। পরাজয়ের জন্য কি কি কারণ ছিলো তা জানানো হবে। বিজয়ী মেয়র জায়েদা খাতুন আপনার সহযোগিতা চাইবেন বলে জানিয়েছেন এমন প্রশ্নের জবাবে আজমত উল্লাহ বলেন, কেউ যদি সহযোগিতা চায় তা অবশ্যই বিবেচনা করা হবে। গতকাল (২৫) মে গাজীপুর সিটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।

উল্লেখ্য, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী (টেবিল ঘড়ি) প্রতীকে ২ লাখ ৩৮ হাজার ৯৩৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন সাবেক মেয়র মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলমের মা জায়েদা খাতুন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের আজমত উল্লা খান নৌকা প্র্রতীকে ২ লাখ ২২ হাজার ৭৩৭ ভোট পেয়েছেন। ১৬ হাজার ১৯৭ ভোটের ব্যবধানে জায়েদা খাতুন জয় লাভ করেন। জয় লাভের পর জায়েদা খাতুন পদ পরিচালনা করার ক্ষেত্রে আজমত উল্লাহ খানের সহযোহিতা
চাইতে পারেন বলে প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় ঘোষণা করেন।