ঢাকা , মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০২৪, ৮ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বছরের প্রথম ৩ মাসের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো

গত বছরের অক্টোবর থেকে ডিসেম্বরের তুলনায় চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো ছিল বলে দাবি করেছে পুলিশ।

সোমবার পুলিশের ত্রৈমাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা শেষে পুলিশ সদরদফতরের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পর্যালোচনা বৈঠকে ব্লগার হত্যা মামলার অগ্রগতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। জানানো হয়, ব্লগার হত্যার ১১টি মামলার ১০টিরই বিচার শেষ হয়নি। বৈঠকে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) শহীদুল হক পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তাদের জঙ্গি তৎপরতা বন্ধে জনগণকে সম্পৃক্ত করার পরামর্শ দিয়েছেন।

আইজিপি শহীদুল হক বলেন, ‘জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান জিরো টলারেন্স। জঙ্গি কার্যক্রম সম্পর্কে পুলিশকে সজাগ ও সতর্ক থাকতে হবে। ভাড়াটে, ভাসমান ও অস্থায়ী আগন্তুকদের সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করতে হবে। তাদের সঠিক পরিচয় শনাক্ত করতে হবে। অপরাধী ও সন্ত্রাসী চিহ্নিত করার ক্ষেত্রে কমিউনিটি পুলিশিকে সম্পৃক্ত করতে হবে।’

সভায় পুলিশ সদরদফতরের অতিরিক্ত উপ-মহাপরিদর্শক মো. জহিরুল ইসলাম ভূঁইয়া এ বছরের প্রথম তিন মাসের অপরাধ পরিস্থিতি তুলে ধরেন। এতে বলা হয়, ২০১৫ সালের অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত সারাদেশে মোট মামলা হয়েছিল ৪৪ হাজার ২১৫টি।

এ বছরের জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত মামলা হয়েছে ৪২ হাজার ২৬৯টি। সারাদেশে এ সময় খুন, দ্রুত বিচার, দাঙ্গা, ধর্ষণ, নারী নির্যাতন, শিশু নির্যাতন ইত্যাদি মামলার পরিমাণ কমেছে।

তবে ডাকাতি, দস্যুতা, অপহরণ, সিঁধেল চুরি, চুরি মামলার সংখ্যা বেড়েছে। একই সময়ে মাদকদ্রব্য ও চোরাচালান দ্রব্য উদ্ধারের পরিমাণ বেড়েছে। এই সময়ে পুলিশের বিস্ফোরক দ্রব্য উদ্ধারের পরিমাণও বেড়েছে।

বৈঠকে জানানো হয়, জননিরাপত্তা বিধানে পুলিশ হতাহতের ঘটনায় সারাদেশে বিভিন্ন পুলিশ ইউনিটে মোট ১৩টি মামলা হয়েছে। এর মধ্যে ১২টি মামলায় অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে। বর্তমানে একটি মামলা তদন্তাধীন রয়েছে।

দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত ওই সভায় সব পুলিশ কমিশনার, রেঞ্জ ডিআইজি, ঢাকার পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের প্রধানগণ এবং পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

Tag :
আপলোডকারীর তথ্য

Bangal Kantha

বছরের প্রথম ৩ মাসের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো

আপডেট টাইম : ০৫:০২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২ মে ২০১৬

গত বছরের অক্টোবর থেকে ডিসেম্বরের তুলনায় চলতি বছরের জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভালো ছিল বলে দাবি করেছে পুলিশ।

সোমবার পুলিশের ত্রৈমাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা শেষে পুলিশ সদরদফতরের পক্ষ থেকে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পর্যালোচনা বৈঠকে ব্লগার হত্যা মামলার অগ্রগতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। জানানো হয়, ব্লগার হত্যার ১১টি মামলার ১০টিরই বিচার শেষ হয়নি। বৈঠকে পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) শহীদুল হক পুলিশের শীর্ষ কর্মকর্তাদের জঙ্গি তৎপরতা বন্ধে জনগণকে সম্পৃক্ত করার পরামর্শ দিয়েছেন।

আইজিপি শহীদুল হক বলেন, ‘জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান জিরো টলারেন্স। জঙ্গি কার্যক্রম সম্পর্কে পুলিশকে সজাগ ও সতর্ক থাকতে হবে। ভাড়াটে, ভাসমান ও অস্থায়ী আগন্তুকদের সম্পর্কে তথ্য সংগ্রহ করতে হবে। তাদের সঠিক পরিচয় শনাক্ত করতে হবে। অপরাধী ও সন্ত্রাসী চিহ্নিত করার ক্ষেত্রে কমিউনিটি পুলিশিকে সম্পৃক্ত করতে হবে।’

সভায় পুলিশ সদরদফতরের অতিরিক্ত উপ-মহাপরিদর্শক মো. জহিরুল ইসলাম ভূঁইয়া এ বছরের প্রথম তিন মাসের অপরাধ পরিস্থিতি তুলে ধরেন। এতে বলা হয়, ২০১৫ সালের অক্টোবর থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত সারাদেশে মোট মামলা হয়েছিল ৪৪ হাজার ২১৫টি।

এ বছরের জানুয়ারি থেকে মার্চ পর্যন্ত মামলা হয়েছে ৪২ হাজার ২৬৯টি। সারাদেশে এ সময় খুন, দ্রুত বিচার, দাঙ্গা, ধর্ষণ, নারী নির্যাতন, শিশু নির্যাতন ইত্যাদি মামলার পরিমাণ কমেছে।

তবে ডাকাতি, দস্যুতা, অপহরণ, সিঁধেল চুরি, চুরি মামলার সংখ্যা বেড়েছে। একই সময়ে মাদকদ্রব্য ও চোরাচালান দ্রব্য উদ্ধারের পরিমাণ বেড়েছে। এই সময়ে পুলিশের বিস্ফোরক দ্রব্য উদ্ধারের পরিমাণও বেড়েছে।

বৈঠকে জানানো হয়, জননিরাপত্তা বিধানে পুলিশ হতাহতের ঘটনায় সারাদেশে বিভিন্ন পুলিশ ইউনিটে মোট ১৩টি মামলা হয়েছে। এর মধ্যে ১২টি মামলায় অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়েছে। বর্তমানে একটি মামলা তদন্তাধীন রয়েছে।

দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত ওই সভায় সব পুলিশ কমিশনার, রেঞ্জ ডিআইজি, ঢাকার পুলিশের বিভিন্ন ইউনিটের প্রধানগণ এবং পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।