বিয়ের আসরে ঝগড়া, হবু স্ত্রীকে হত্যার পর বরের আত্মহত্যা

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ বিয়ের আসরে কনেসহ চারজনকে গুলি করে হত্যার পর আত্মহত্যা করেছেন থাইল্যান্ডের এক প্যারা অ্যাথলেট ও সাবেক সেনা কর্মকর্তা তার। স্থানীয় পুলিশ এ তথ্য জানিয়েছে।

গত শনিবার চাতুরং সুকসুক (২৯) ও কাঞ্চনা পাচুনথুয়েকের (৪৪) বিয় হয়। আনুষ্ঠানিকতার সময় হঠাৎ আসর থেকে বের হয়ে চাতুরং বন্দুক নিয়ে ফিরে আসেন।

এরপর তার স্ত্রী, স্ত্রীর মা (৬২) ও বোনকে (৩৮) গুলি করেন। তাদের ছাড়া দুই অতিথিকেও গুলি করেন চাতুরং, যাদের একজন হাসপাতালে মারা গেছেন।

পুলিশ বলছে, চাতুরং ‘ঘটনার সময় বেশ নেশাগ্রস্ত ছিলেন’। কিন্তু তার উদ্দেশ্য এখনো স্পষ্ট নয়। তিনি গত বছর বৈধ বন্দুক ও গোলাবারুদ কিনেছিলেন।

থাইল্যান্ডের গণমাধ্যম অতিথিদের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেছে, বিয়ের অনুষ্ঠানেই এ দম্পতির ঝগড়া হয়। কনের সঙ্গে বয়সের ব্যবধান মেনে নিতে পারছিলেন না চাতুরং। তবে পুলিশ বলছে, বয়স নিয়ে ঝামেলার কথাটি এখনো অনুমান।

তারা অল্প সময়ের মধ্যেই রহস্য উদঘাটনের আশা করছে। থাই গণমাধ্যমের মতে, বিয়ের আগে চাতুরং ও কাঞ্চনা তিন বছর একসঙ্গে থেকেছেন।

চাতুরং গত বছর ইন্দোনেশিয়ায় আসিয়ান প্যারা গেমসে সাঁতারে রৌপ্য পদক জিতেছিলেন। আগামী মাসে থাইল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া বিশ্ব অ্যাবিলিটিস্পোর্ট গেমসে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ক্রীড়াবিদদের তালিকায় তিনি রয়েছেন বলেও ধারণা করা হচ্ছিল। থাইল্যান্ডের সীমান্তে টহলরত আধাসামরিক বাহিনীতে দায়িত্ব পালনের সময় তিনি তার ডান পা হারিয়েছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর