নতুন চ্যাটজিপিটিতে বিনামূল্যেই পাওয়া যাবে দ্বিগুণ সুবিধা

কৃত্রিম বৃদ্ধিমত্তায় আলোড়ন তোলা চ্যাটজিপিটিতে আরও একটি আমূল পরিবর্তন নিয়ে এলো ওপেন এআই। সোমবার লাইভস্ট্রিমে উন্মুক্ত করা হয় চ্যাটজিপিটির নতুন এআই মডেল জিপিটি ফোর-ও। আগে ভার্চুয়াল অ্যাস্টিস্ট্যান্ট হিসাবে টেক্সট ও ইমেজের মাধ্যমে ব্যবহারকারীর সঙ্গে চলত আলাপচারিতা।

এখন থেকে অ্যামাজনের অ্যাসিস্ট্যান্ট অ্যালেক্সার মতো মৌখিকভাবে কথোপকথন করা যাবে চ্যাটজিপিটির সঙ্গে। যেখানে ব্যবহারকারীরা উপভোগ করতে পারবেন বাস্তবসম্মত আলাপচারিতা। আপাতত ৫০টি ভাষায় ব্যবহার করা যাবে নতুন মডেলটি। প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তা বলছেন, গেল বছর লঞ্চ করা জিপিটি ফোর টার্বোর থেকে দ্বিগুণ দ্রুতগতিতে কাজ করতে পারবে জিপিটি ফোর-ও।

ওপেনএআইয়ের প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা (সিটিও) মিরা মুরতি জানিয়েছেন, বিনা মূল্যে ব্যবহার করা গেলেও অর্থের বিনিময়ে চ্যাটজিপিটি ব্যবহারকারীরা নতুন মডেলের বিভিন্ন সুবিধা পাঁচগুণ বেশিবার ব্যবহার করতে পারবেন। এক বার্তায় ওপেনএআই জানিয়েছে, জিপিটি ফোর-ও মডেলের বার্তা ও ছবি তৈরির নতুন সুবিধা এখন থেকে উন্মুক্ত করা হলেও অন্য সুবিধাগুলো শিগ্গির চালু করা হবে।

প্রতিষ্ঠানটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) স্যাম অল্টম্যান এক্সে (সাবেক টুইটার) দেওয়া এক বার্তায় নতুন মডেলটিকে ‘মাল্টিমডেল’ হিসাবে উল্লেখ করেছেন। অর্থাৎ ব্যবহারকারীদের লেখা বার্তা, ছবি ও কণ্ঠস্বরও আলাদা করে চিনতে পারবে মডেলটি। ‘জিপিটি-৪’ মডেলের তুলনায় দ্বিগুণ গতিতে কাজ করলেও অর্ধেক খরচে নতুন মডেলের এপিআই (অ্যাপ্লিকেশন প্রোগ্রামিং ইন্টারফেস) ব্যবহার করতে পারবেন প্রোগ্রামাররা।

২০২২ সালের নভেম্বরে চ্যাটজিপিটি বাজারে এনে তাক লাগিয়ে দেয় ওপেনএআই। প্রযুক্তির জগতে রীতিমতো বিপ্লব ঘটিয়ে দেয় এ প্রতিষ্ঠানটি।

শুধু মৌলিক ব্যবহারই নয়, ত্রিকোণমিতি থেকে শুরু করে প্রোগামিং এমনকি ভাষা শিক্ষায় শিক্ষকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে পারে চ্যাট জিপিটি। প্রতি মাসে মাত্র ২০ ডলারের বিনিময়ে চাইলে এমন স্মার্ট ভার্চুয়াল অ্যাসিস্ট্যান্ট রাখতে পারবেন আপনিও।

 

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর