১ কোটি ২৫ লাখের বেশি এক ডোজ টিকা দেওয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, জরায়ু ক্যান্সার প্রতিরোধে সারা দেশে স্কুলের ১০ থেকে ১৪ বয়সি মেয়েদের এক কোটি ২৫ লাখের বেশি এক ডোজ টিকা দেওয়া হবে।

প্রাথমিকভাবে সারা দেশে ২৩ লাখ শিক্ষার্থীকে এ টিকার আওতায় আনা হবে।

তিনি বলেন, মানিকগঞ্জে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ৭২ হাজার টিকা দেওয়া হবে এবং ঢাকা বিভাগে ২৩ লাখ টিকা দেওয়া হবে। পর্যায়ক্রমে সারা দেশে এক কোটি ২৫ লাখের বেশি জরায়ু ক্যান্সার প্রতিরোধ টিকা দেওয়া হবে। প্রাথমিকভাবে এই টিকা কার্যক্রম এক মাস চলবে। তবে টিকা সামনে আরও আসবে, তখন পর্যায়ক্রমে সারা দেশে টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

রোববার দুপুর ১২টার দিকে মানিকগঞ্জ সিভিল সার্জন কার্যালয়ের আয়োজিত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পর্যায়ে এইচপিভি টিকাদান ক্যাম্পেইনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের নারীর ক্ষমতায়ন করেছেন। তিনি বিশেষ করে মা-বোনদের বেশি দেখেন। আজকে মেয়ের জন্য বিনামূল্যে বই বিতরণ, চাকরিতে মহিলাদের অগ্রাধিকার দেয়া হয়েছে। সরকারি বিভিন্ন দপ্তরে আজকে নারীরা কাজ করছেন। দেশের উন্নয়নের নারীদের ভূমিকা অনেক; যা আগে ছিল না, এটা বুঝতে হবে। এ বছর এমবিবিএসে ৭০ ভাগ মেয়েরা ভর্তি হয়েছে, তারা ডাক্তার হবে। আমরা প্রায় ৪-৫ হাজার ডাক্তার নিয়েছি, সেখানেও ৭০ শতাংশ মেয়েরা উত্তীর্ণ হয়েছে। একেই বলে নারীর ক্ষমতায়ন, যা শেখ হাসিনা করেছেন।

বিএনপিকে উদ্দেশ্য করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, স্বাস্থ্য বিষয় নিয়ে বিএনপির অনেক বিভ্রান্তমূলক কথা বলেছে। আমরা দেখেছি বিএনপি টিকা নিয়ে বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়িয়েছে। মানুষকে ভালোবাসলে এ স্বাস্থ্য বিষয় নিয়ে কখনো কেউ বিভ্রান্তিকর তথ্য দেয় না।

শিক্ষার্থীদের কাছে আগামী নির্বাচনে ভোট চেয়ে তিনি বলেন, স্কুলের মেয়েরা তোমাদের একটা কাজ হবে, তোমাদের মা-বাবা, ভাই-বোন, আত্মীয়-স্বজন যারা ভোটার রয়েছেন, তাদের সামনের নির্বাচনে শেখ হাসিনাকে ভোট দিতে হবে, আওয়ামী লীগকে ভোট দিতে হবে, নৌকায় ভোট দিতে হবে। দ্বিধা করলে চলবে না, জয় বাংলা স্লোগান দিয়ে এই দেশ স্বাধীন হয়েছে। এই দেশ স্বাধীন করেছে আওয়ামী লীগ, দেশের জন্য রক্ত দিয়েছে নৌকা মার্কা। কাজেই শেখ হাসিনাকে আবারো ক্ষমতায় আনতে হবে।

অনুষ্ঠানে মানিকগঞ্জের জেলা প্রশাসক রেহেনা আক্তারের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন- স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) রাশেদা সুলতানা, সিভিল সার্জন মোয়াজ্জেম আল খান চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম মহীউদ্দিন, পৌর মেয়র মো. রমজান আলী, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক সুলতানুল আজম খান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) জ্যোতিশ্বর পাল, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আবু বকর সিদ্দিক তুষারসহ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শতাধিক শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর