ঢাকা , শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

এশিয়ায় চ্যাম্পিয়ন ইরানি মেয়ে, স্বর্ণ চান অলিম্পিকেও

ইরানের মহিলা তায়েকোন্ডো খেলোয়াড় কিমিয়া আলীজাদেহ অসাধারণ পারফরমেন্স দেখিয়ে এশিয়া কোয়ালিফিকেশন টুর্নামেন্টে স্বর্ণ পদক জিতেছেন। এর মাধ্যমে তিনি চলতি বছরে অনুষ্ঠেয় রিও অলিম্পিক গেমসে খেলার যোগ্যতা অর্জন করলেন।

রোববার কিমিয়া ফিলিপাইনের রাজধানী ম্যানিলার পাসে সিটির ম্যারিয়ট গ্র্যান্ড বলরুমে মাইনাস ৫৭ কিলোগ্রাম ওজন শ্রেণিতে অংশ নেন এবং ফাইনালে থাইল্যান্ডের ফান্নাপা হার্নসুজিনকে ৩-২ এ পরাজিত করে স্বর্ণপদক লাভ করেন।

Iranএর আগে ইভেন্টের প্রথম রাউন্ডে ১৭ বছর বয়সী কিমিয়া একটি বাই পান এবং কোয়ার্টার ফাইনালে ইন্দোনেশিয়ার প্রতিযোগী শালেহা ফিত্রিয়ানা ইউসুফকে ১৯-০তে পরাজিত করেন। এরপর সেমিফাইনালে তিনি নেপালের প্রতিযোগী নিমা গুরাংকে ১৫-২ পয়েন্টে পরাজিত করে ফাইনাল নিশ্চিত করেন।

স্বর্ণপদক জেতার পর কিমিয়া আলীজাদেহ বলেন, “অন্তর থেকে বলছি, স্বর্ণ পদক জিতে আমি অনেক বেশি খুশি। ইরানের জনগণকে খুশি করতে পেরে আমি সত্যিই আনন্দিত। এখন আমার স্বপ্ন হচ্ছে অলিম্পিকে সোনার পদক জেতা।”

রিও অলিম্পিক-২০১৬’র জন্য এশিয় অঞ্চলের বাছাই পর্ব শুরু হয়েছিল ১৬ এপ্রিল থেকে। ফিলিপাইনের রাজধানী ম্যানিলায় এ ইভেন্ট চলে দুদিন ধরে। এশিয়ার ৩৬টি দেশ থেকে মোট ৯৮ জন প্রতিযোগী আটটি ওজন শ্রেণিতে অংশ নেন। ইভেন্টের প্রতিটি ওজন শ্রেণি থেকে বিজয়ী ও রানার আপ অলিম্পিক গেমসে নিজ দেশের পক্ষে অংশ নেয়ার সুযোগ পাবেন।

Tag :
আপলোডকারীর তথ্য

Bangal Kantha

এশিয়ায় চ্যাম্পিয়ন ইরানি মেয়ে, স্বর্ণ চান অলিম্পিকেও

আপডেট টাইম : ০৫:৪৫ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ এপ্রিল ২০১৬

ইরানের মহিলা তায়েকোন্ডো খেলোয়াড় কিমিয়া আলীজাদেহ অসাধারণ পারফরমেন্স দেখিয়ে এশিয়া কোয়ালিফিকেশন টুর্নামেন্টে স্বর্ণ পদক জিতেছেন। এর মাধ্যমে তিনি চলতি বছরে অনুষ্ঠেয় রিও অলিম্পিক গেমসে খেলার যোগ্যতা অর্জন করলেন।

রোববার কিমিয়া ফিলিপাইনের রাজধানী ম্যানিলার পাসে সিটির ম্যারিয়ট গ্র্যান্ড বলরুমে মাইনাস ৫৭ কিলোগ্রাম ওজন শ্রেণিতে অংশ নেন এবং ফাইনালে থাইল্যান্ডের ফান্নাপা হার্নসুজিনকে ৩-২ এ পরাজিত করে স্বর্ণপদক লাভ করেন।

Iranএর আগে ইভেন্টের প্রথম রাউন্ডে ১৭ বছর বয়সী কিমিয়া একটি বাই পান এবং কোয়ার্টার ফাইনালে ইন্দোনেশিয়ার প্রতিযোগী শালেহা ফিত্রিয়ানা ইউসুফকে ১৯-০তে পরাজিত করেন। এরপর সেমিফাইনালে তিনি নেপালের প্রতিযোগী নিমা গুরাংকে ১৫-২ পয়েন্টে পরাজিত করে ফাইনাল নিশ্চিত করেন।

স্বর্ণপদক জেতার পর কিমিয়া আলীজাদেহ বলেন, “অন্তর থেকে বলছি, স্বর্ণ পদক জিতে আমি অনেক বেশি খুশি। ইরানের জনগণকে খুশি করতে পেরে আমি সত্যিই আনন্দিত। এখন আমার স্বপ্ন হচ্ছে অলিম্পিকে সোনার পদক জেতা।”

রিও অলিম্পিক-২০১৬’র জন্য এশিয় অঞ্চলের বাছাই পর্ব শুরু হয়েছিল ১৬ এপ্রিল থেকে। ফিলিপাইনের রাজধানী ম্যানিলায় এ ইভেন্ট চলে দুদিন ধরে। এশিয়ার ৩৬টি দেশ থেকে মোট ৯৮ জন প্রতিযোগী আটটি ওজন শ্রেণিতে অংশ নেন। ইভেন্টের প্রতিটি ওজন শ্রেণি থেকে বিজয়ী ও রানার আপ অলিম্পিক গেমসে নিজ দেশের পক্ষে অংশ নেয়ার সুযোগ পাবেন।