জলবিদ্যুৎ নিয়ে শিগগিরই চুক্তি হবে বাংলাদেশ-ভুটানের

ভুটান এবং বাংলাদেশ দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে জলবিদ্যুতে সহযোগিতার বিষয়ে শিগগিরই একটি সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই হবে বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত দেশটির রাষ্ট্রদূত রিনচেন কুয়েনসল।

মঙ্গলবার (৯ মে) বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিনের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে এ কথা বলেন ভুটানের রাষ্ট্রদূত। বৈঠক শেষে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

সাক্ষাৎকালে ভুটানের রাষ্ট্রদূত বলেন, শিগগিরই বাংলাদেশ ও ভুটানের মধ্যে হাইড্রোপাওয়ার (জলবিদ্যুৎ) বিষয়ে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হবে যার ফলে দুই দেশের মধ্যে সহযোগিতার সম্পর্ক আরও সম্প্রসারিত হবে।

রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন বলেন, জলবিদ্যুৎ খাতে সহযোগিতার বিষয়ে একটি দ্বিপক্ষীয় সমঝোতা স্মারক সইয়ের ফলে দুই দেশের সম্পর্ক আরও মজবুত হবে।

এ সময় রাষ্ট্রপতি ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে ভুটানের জনগণের অটল সমর্থনের কথা স্মরণ করে বলেন, ঢাকা ভুটানের সঙ্গে সম্পর্ককে বিশেষ গুরুত্ব দেয়। কারণ, আমাদের মুক্তিযুদ্ধে চূড়ান্ত বিজয়ের আগেই প্রথম দেশ হিসেবে ১৯৭১ সালের ৬ ডিসেম্বর ভুটান বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দেয়।

তিনি আরও বলেন, দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে চমৎকার সম্পর্ক আগামী দিনে আরও নতুন উচ্চতায় উন্নীত হবে। এ ছাড়া সমগ্র অঞ্চলের সুবিধার জন্য বিদ্যমান সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে দুই দেশ বিভিন্ন আঞ্চলিক ও বহুপক্ষীয় ফোরামে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবে।

এর আগে রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. মাহবুব হোসেন। সাক্ষাৎকালে মন্ত্রিপরিষদ সচিব প্রশাসনিক বিভিন্ন বিষয় সম্পর্কে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন এবং দায়িত্ব পালনে রাষ্ট্রপতির দিক নির্দেশনা কামনা করেন। রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিন প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীদের সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন।

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর