,



পরীক্ষামূলকভাবে অনলাইন চা নিলাম চালু

বাঙালী কণ্ঠ ডেস্কঃ চট্টগ্রাম চা নিলাম কেন্দ্রে সোমবার পরীক্ষামূলকভাবে অনলাইন চা নিলাম কার্যক্রম শুরু হয়েছে। নগরীর আগ্রাবাদে অবস্থিত নিলাম কেন্দ্রে চলতি নিলাম বর্ষের (২০২০-২১) সর্বশেষ নিলামের (৪২তম) আংশিক নিলাম কার্যক্রম অনলাইন চা নিলাম সিস্টেমে পরীক্ষামূলকভাবে পরিচালনা করা হয়।

বাংলাদেশ চা বোর্ডের সদস্য (অর্থ ও বাণিজ্য) ড. নাজনীন কাউসার চৌধুরী অনলাইন চা নিলামের পরীক্ষামূলক কার্যক্রমের উদ্বোধনী বক্তৃতায় বলেন, অনলাইন চা নিলাম দেশের চা নিলাম ও চায়ের বিপণন কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করবে। এতে কভিড পরিস্থিতিতে চা বিপণনে ও ব্যবসায় নতুন গতির সঞ্চার হবে। সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার অংশ হিসেবে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনায় ও বাংলাদেশ চা বোর্ডের সার্বিক তত্ত্বাবধানে টি ট্রেডার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টিটিএবি) কর্তৃক দ্রুত সময়ের মধ্যে পরীক্ষামূলভাবে অনলাইন চা নিলাম কার্যক্রম চালু করায় তিনি সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান।

তিনি বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উত্তরণের বছরে অনলাইন চা নিলামের পরীক্ষামূলক যাত্রা দেশের চা শিল্পের ইতিহাসে একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ। দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে বিডাররা অনলাইনে ঘরে বসেই চা বিপণনে অংশ নিতে পারবেন। ফলে ক্রেতাদের স্বাস্থ্য ঝুঁকি হ্রাস, সময় ও অর্থের সাশ্রয়ের পাশাপাশি চা বিপণনে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা আর দৃঢ় হবে। এ ছাড়া কভিডসহ যেকোনো অনাকাঙ্খিত প্রতিকূল পরিস্থিতিতে চা বিপণন স্বাভাবিক থাকবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালে টিটিএবি অনলাইন চা নিলামের সম্ভাব্যতা যাচাই শুরু করে। ২০২০ সালে করোনা মহামারীতে চা নিলাম কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হওয়ার ফলে বাংলাদেশ চা বোর্ড অনলাইন চা নিলাম দ্রুত শুরুর বিষয়ে টিটিএবিকে নির্দেশনা দেয়। পরবর্তীতে বাংলাদেশ চা বোর্ডের চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল মো. জহিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে টিটিএবি, ব্রোকার, ব্যবসায়ী এবং বিভিন্ন ভেন্ডরদের সাথে ধারাবাহিক পর্যালোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয় এবং তিনি প্রয়োজনীয় পরামর্শ ও নির্দেশনা প্রদান করেন। তারই ধারাবাহিকতায় সোমবার পরীক্ষামূলকভাবে অনলাইন চা নিলাম শুরু হলো। অনলাইন নিলামে প্রায় ১২ হাজার কেজি চা বিক্রি হয়েছে। নিলামে ন্যাশনাল ব্রোকারের মাধ্যমে মির্জাপুর বাগানের চা প্রথম বিক্রি হয়। ইস্পাহনী টি লি. ৩১২ টাকা কেজিতে প্রথম লট ক্রয় করে। প্রায় ২৫ জন বিডার অনলাইন অকশনে অংশগ্রহণ করে।

উল্লেখ্য, পরীক্ষামূলক অনলাইন নিলামের ধারাবাহিকতায় আগামী ২০২১-২২ চা নিলাম বর্ষের শুরু থেকেই পরীক্ষামূলক অনলাইন চা নিলাম কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। পরীক্ষামূলক কার্যক্রমের সফলতার ওপর ভিত্তি করে আগামী চা নিলাম বর্ষেই নিলাম কার্যক্রম শতভাগ অনলাইনে নিয়ে আসা হবে বলে প্রত্যাশা করা যাচ্ছে।

নিলাম অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে টিটিএবি চেয়ারম্যান শাহ মঈনুদ্দীন হাসান, চা বোর্ডের বিপণন কর্মকর্তা আহসান হাবিব, ব্রোকার প্রতিনিধি ও চা ব্যবসায়ীগণ উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email

এই ক্যাটাগরীর আরো খবর