ঢাকা , সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ৬ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আমি যতদিন থাকবো, রুহুল আমীন হাওলাদারও থাকবে

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, রুহুল আমীন হাওলাদার তার অত্যন্ত বিশ^স্ত মানুষ। তিনি যতদিন থাকবেন হাওলাদার তার সঙ্গেই থাকবেন। মাঝখানে একটু ভুল বোঝাবুৃঝি হলেও এখন আর তা নেই বলে দাবি করেন তিনি।

বুধবার বিকালে দীর্ঘ ১০ বছর পর পটুয়াখালী জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, জনগণ ভাবছে ইউপি নির্বাচনে জাপা আওয়ামী লীগের সঙ্গে ভাগাভাগি করে চেয়ারম্যান বানাচ্ছে। বাস্তবে তা সত্য নয় বলে দাবি করেন তিনি।

এর আগে জেলা শিল্পকলা অ্যাকাডেমির সামনে জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন তিনি।

এ সময় তার আরও উপস্থিত ছিলেন পার্টির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি, সুনীল শুভ রায়, এস. এম ফয়সাল চিশতী, আবদুস সবুর আসুদ এবং পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান নাসরিন জাহান রতœা এমপিসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির আহবায়ক সাবেক সংসদ সদস্য আবদুর রাজ্জাক খানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অধিবেশনে আরও বক্তব্য রাখেন পটুয়াখালী জেলা পরিষদ প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক খান মোশাররফ হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী আলমগীর, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট তারিকুজ্জামান মনি প্রমুখ।

সম্মেলনে দ্বিতীয় অধিবেশন না করে কণ্ঠ ভোটে আবদুর রাজ্জাক খানকে সভাপতি এবং খায়রুল আলম মামুনকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করেন এরশাদ। পরে কুয়াকাটার উদ্দেশ্যে পটুয়াখালী ত্যাগ করেন সাবেক এই রাষ্ট্রপতি।

Tag :
আপলোডকারীর তথ্য

Bangal Kantha

আমি যতদিন থাকবো, রুহুল আমীন হাওলাদারও থাকবে

আপডেট টাইম : ০৫:২৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ এপ্রিল ২০১৬
জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ বলেছেন, রুহুল আমীন হাওলাদার তার অত্যন্ত বিশ^স্ত মানুষ। তিনি যতদিন থাকবেন হাওলাদার তার সঙ্গেই থাকবেন। মাঝখানে একটু ভুল বোঝাবুৃঝি হলেও এখন আর তা নেই বলে দাবি করেন তিনি।

বুধবার বিকালে দীর্ঘ ১০ বছর পর পটুয়াখালী জেলা জাতীয় পার্টির সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, জনগণ ভাবছে ইউপি নির্বাচনে জাপা আওয়ামী লীগের সঙ্গে ভাগাভাগি করে চেয়ারম্যান বানাচ্ছে। বাস্তবে তা সত্য নয় বলে দাবি করেন তিনি।

এর আগে জেলা শিল্পকলা অ্যাকাডেমির সামনে জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন তিনি।

এ সময় তার আরও উপস্থিত ছিলেন পার্টির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদার, প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি, সুনীল শুভ রায়, এস. এম ফয়সাল চিশতী, আবদুস সবুর আসুদ এবং পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান নাসরিন জাহান রতœা এমপিসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির আহবায়ক সাবেক সংসদ সদস্য আবদুর রাজ্জাক খানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অধিবেশনে আরও বক্তব্য রাখেন পটুয়াখালী জেলা পরিষদ প্রশাসক ও জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক খান মোশাররফ হোসেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাজী আলমগীর, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট তারিকুজ্জামান মনি প্রমুখ।

সম্মেলনে দ্বিতীয় অধিবেশন না করে কণ্ঠ ভোটে আবদুর রাজ্জাক খানকে সভাপতি এবং খায়রুল আলম মামুনকে সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করেন এরশাদ। পরে কুয়াকাটার উদ্দেশ্যে পটুয়াখালী ত্যাগ করেন সাবেক এই রাষ্ট্রপতি।